৪০ বছর পর্যন্ত শিক্ষাঋণ, স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ডের সূচনা করে ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

৪০ বছর পর্যন্ত শিক্ষাঋণ, স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ডের সূচনা করে ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ডের সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার নবান্ন থেকে তিনি জানালেন, এই কার্ডে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণের সুযোগ পাবেন পড়ুয়ারা। শুধু দশম থেকে স্নাতকোত্তরই নয়, এই ক্রেডিট কার্ডের ভিত্তিতে উচ্চ শিক্ষা, গবেষণা ও অন্যান্য প্রযুক্তি শিক্ষায় এই কার্ডের মাধ্যমে ঋণ নিতে পারবেন পড়ুয়ারা। শিক্ষা ঋণ মিলবে ৪০ বছর বয়স পর্যন্ত। মুখ্যমন্ত্রীর ব্যাখ্যা, অনেকেই অর্থের অভাবে উচ্চশিক্ষায় এগোতে পারেননি। তাঁরা যাতে নতুন করে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করতে পারেন, সেই জন্যই এই ব্যবস্থা। বাড়ির নিকটবর্তী সমবায় ব্যাংকে এই ঋণ পাওয়া যাবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। গ্যারান্টার থাকবে রাজ্য সরকার।
তবে স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ডের জালিয়াতি বা প্রতারণা থেকে প্রশাসনকে সতর্ক থাকতে বলেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশাসনের আধিকারিকদের তাঁর বার্তা, দেখবেন যাতে কোনও ভাবে স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড জাল না করা হয়।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবকদের উদ্দেশে বলেন, ‘দালালদের খপ্পরে পড়বেন না। নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন করুন।’ রাজ্য উচ্চশিক্ষা দফতর ও এগিয়ে বাংলার পোর্টাল ছাড়াও wbscc.wb.gov.in পোর্টালের মাধ্যমে সরাসরি অনলাইনে শিক্ষা ঋণের আবেদন জানানোর কথা বলেন মমতা। পাশাপাশি টোল ফ্রি নম্বর ১৮০০১০২৮০১৪ তেও ফোন করে আবেদন সংক্রান্ত সাহায্য মিলবে বলে তিনি জানান। মুখ্যমন্ত্রী জানান, শুধু রাজ্যেই নয়, ভিন রাজ্যে, এমনকী বিদেশেও পছন্দের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়ার জন্য ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ পাবেন পড়ুয়ারা। এককালীন ঋণের পাশাপাশি পড়ুয়ারা প্রয়োজন মতো ধাপে ধাপে ঋণের আবেদনও করতে পারবেন।

Related Articles